ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে করবেন??

আমরা এতক্ষণ ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করলাম এবার আমরা কিভাবে মার্কেটিং করতে পারব এ বিষয়ে সংক্ষেপে আলোচনা করবো এবং সামনে আমরা বিস্তারিত এ বিষয়ে আলোচনা করবো। আমি ফেসবুক মার্কেটিং কে ২ ভাগে ভাগ করেছি। প্রথমটি পেইড ছাড়া বা স্বতন্ত্র দ্বিতীয়টি পেইড বা মার্কেটারের সাহায্য করতে পারেন।

স্বতন্ত্র বা পেইড ছাড়া মার্কেটিং

আপনি যখন নিজে নিজেই ফেসবুকে মার্কেটিং শুরু করবেন তখন তাকে স্বতন্ত্র মার্কেটিং বলে। এধরণের মার্কেটিং এ আপনি আপনার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকেই করতে পারবেন । এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কারণ আপনি যদি নিজে মার্কেটিং করতে চান তাহলে আপনার অ্যাকাউন্টটি হতে হবে ষ্ট্যাণ্ডার্ড। সোশ্যাল মিডিয়াতে মানুষ অপরিচিত কাওকেই সহজে বিশ্বাস করতে চায় না আর যদি বিশ্বাস না হয় তাহলে মানুষ কোন কারনেই তার কোন কথা বা তার কাছ থেকে কিছুই শুনতে আগ্রহ প্রকাশ করবে না।আপনার নিজের এই পরিচিতি বাড়াতে হলে আপনাকে কিছু অবশ্যই করতে হবে আর এ উদ্দেশ্য আপনাকে নিয়মিত একটিভ থাকতে হবে এবং বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল বা ভিডিও শেয়ার করতে হবে এতে করে তাদের সাথে আপনার একটা যোগাযোগ তৈরী হবে। এভাবে নিয়মিত যোগাযোগ পোস্ট কমেন্ট এর মাধ্যমে আপনি সবার বিশ্বাস যোগ্য হয়ে উঠতে পারবেন। ফেসবুক মার্কেটিং এর জন্য কিভাবে একটি ষ্ট্যাণ্ডার্ড অ্যাকাউন্ট করবেন সে বিষয়ে এখন আপনাদের জানাবো।

এখানে আপনাকে প্রথমেই তৈরী করতে হবে একটি ভালো ফেইসবুক প্রোফাইল। ফেসবুকে যাবতীয় ইনফরমেশন দিয়ে সুন্দর একটা প্রোফাইল পিকচার দিয়ে একটি একাউন্ট প্রস্তুত করুন। কোন প্রকার ভুল ইনফরমেশন না দিয়ে প্রোফাইল প্রস্তুত করুন। একটি ভালো মানের অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনার অ্যাকাউন্টটি সাজানো গোছানো হতে হবে। চেষ্টা করুন নিজেকে স্পেশাল করতে তাহলেই সহজে সবার কাছে নিজেকে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে পারবেন। এবার আপনাকে ফ্রেন্ড যুক্ত করার ক্ষেত্রে কিছুটা সতর্ক থাকতে হবে। আপনি এমন কোন ফ্রেন্ড কে এড করবেন না যে নিজেও একজন মার্কেটার, তাহলে দেখা যাবে যে আপনি যে মার্কেটিং করছেন তা কোন কাজেই আসছে না। তাই আপনাকে ফ্রেন্ড অ্যাড করার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। এবার আপনাকে আসল কাজে নামতে হবে। আপনাকে সবার মধ্য গ্রহণযোগ্য করে তুলতে হবে আর সে লক্ষ্য আপনাকে নিয়মিত পোস্ট, কমেন্ট ইত্যাদি করার মাধ্যমে নিজেকে পরিচিত করে তুলবেন। সময়ের সাথে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট কন্টেন্ট তৈরি করে পোস্ট করুন। মজাদার কার্টুন, পোস্ট শেয়ার করে একটিভ থাকুন। আপনি যে বিষয়ে মার্কেটিং করবেন সেই বিষয় সম্পর্কে ভালো মন্দ লেখার চেষ্টা করুন এতে করে আপনার একটা ভালো প্রোফাইল তৈরি হবে। চেষ্টা করুন নিজেকে এ বিষয়ে দক্ষ প্রকাশ করার তাতে করে মানুষ আপনার কাছে সাহায্য এমনিতে চাইবে এবং আপনার মার্কেটিং এর সময় ভালো সাপোর্ট পাবেন। চেষ্টা করুন সবার প্রশ্নের জবাব দিতে এতে করে আপনার স্বচ্ছতা তৈরি হবে। চেষ্টা করুন গ্রুপ খুলে এ বিষয়ে আলোচনা করতে, নিজের গ্রুপকে আলচনার কেন্দ্রবিন্দুতে তৈরি করুন এতে করে আপনি এখানেও আপনার মার্কেটিং করেতে পারবেন। যে কোন বিষয়ে প্রচারনা করার জন্য আপনাকে কৌশলী হতে হবে এবং আপনাকে সেই কৌশল এর ব্যাবহার করে মার্কেটিং করতে হবে। ডিরেক্ট মার্কেটিং করা থেকে বিরত থাকুন এতে করে আপনার প্রতি তাদের ভালো মনোভাব তৈরি হবে। বিভিন্ন গ্রুপ বা আলচনাতেও আপনার মার্কেটিং করুন কৌশলের সাহায্য।

এছাড়া আপনি পেইড মার্কেটিং করতে পারেন বিভিন্ন মার্কেটারের সাহায্য বা আপনি নিজেও ও পেইড মার্কেটিং করতে পারেন। পেইড মার্কেটিং একটি অনেক বড় মার্কেটিং স্টার্টেজি , এখানে আপনাকে মার্কেটিং করে সফল হতে হলে অনেক বিষয় সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে। তাছাড়া আমাদের দেশে ডলার সিস্টেমের ঝামেলার কারনেও পেইড মার্কেটিং করা সম্ভব হয় না। তাই যদি আপনার মাস্টার কার্ড না থাকে আর এ বিষয়ে বেশী এক্সপার্ট না হন তবে মার্কেটিং এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *